পিপল-পার-আওয়ার থেকে ফ্রিল্যান্সিং করে খুব সহজে আয় করুন ঘরে বসে ।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে ফ্রিল্যান্সারদের প্রয়োজনের সাথে পাল্লা দিয়ে। আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার ডট কম, ফাইভার এছাড়া বিভিন্ন ধরনের জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্মের মতো আরেকটি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট হলো পিপল-পার-আওয়ার জেটি মার্কেটে নতুন এসেছে।চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই ওয়েবসাইট থেকে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার নিয়ম।এবং পিপলপারআওয়ার ডটকম ওয়েবসাইট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

বিস্তারিত জানব পিপল পার আওয়ার কি?

পিপল-পার-আওয়ার হলো একটি বিশাল ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস, যেখানে স্বাধীন ভাবে ব্যবসাসমূহ করতে পারবেন (যারা বায়ার নামে পরিচিত) যারা রীতিমতো ফ্রিল্যান্সারের সমুদ্র থেকে নিজেদের কাজের জন্য ফ্রিল্যান্সার পেশা খুঁজে নেন।প্রায় যেকোনো ধরনের সেবা প্রদান করেন পিপলপারআওয়ার এর ফ্রিল্যান্সারগণ কপিরাইটিং থেকে শুরু করে লোগো ডিজাইন, আর্টিকেল রাইটিং এবং ওয়েব ডেভলপমেন্ট পর্যন্ত।অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সার ও বায়ারদের কানেক্ট করার একটি ওয়ান-স্টপ নেটওয়ার্ক হলো পিপল পার আওয়ার আমরা যেটা বুঝতে পারলাম এই সাইটি দেখে। দিনদিন পিপলপারআওয়ার এর জনপ্রিয়তা খুব তাড়া তাড়ি বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

কাজের প্রকারভেদ সম্পরকে জানুন

পিপলপারআওয়ার ওয়েবসাইটে দেখতে পাবেন কয়েকটি জব ক্যাটাগরি রয়েছে।এছাড়া ওয়েবসাইটটিতে লিস্টেড সকল কাজে এসব ক্যাটাগরির মধ্যে থাকা সাব-ক্যাটাগরির অন্তর্ভুক্ত আছে।

পিপলপারআওয়ার ওয়েবসাইটের কাজের ক্যাটাগরিসমূহ নিচে দেওয়া হলোঃ

  • টেকনোলজি ও প্রোগ্রামিং
  • রাইটিং ও ট্রান্সলেশন
  • ডিজাইন
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ভিডিও, ফটো ও ইমেইজ
  • বিজনেস
  • মিউজিক ও অডিও
  • মার্কেটিং ব্র‍্যান্ডিং ও সেলস
  • সোশ্যাল মিডিয়া

একাউন্ট তৈরি ও প্রোফাইল বিল্ডিং কি ভাবে করবেন?

পিপল পার আওয়ার ওয়েবসাইটে যে সকল সেলার রয়েছেন তারা হলেন ফ্রিল্যান্সারগণ, যারা কাজের বিনিময়ে আপনাকে অর্থ পেয়ে থাকেন। ইমেইলস এড্রেস বা ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে আপনি খুব সহজে পিপলপারআওয়ারে সেলার একাউন্ট খুলতে পারবেন। সেলার একাউন্ট খুলতেঃপিপলপারআওয়ার এর রেজিস্ট্রেশন করতে প্রথমে পেজে প্রবেশ করুন।এরপর নিচে থাকা “Sign up with Facebook” বা “Sign up with email” অপশনটি সিলেক্ট করুন“Sign up with email” সিলেক্ট করার পর সেক্ষেত্রে নাম, ইমেইল ও পাসওয়ার্ড প্রদান করে তার পর Sign Up বাটনে ক্লিক করুন।

বায়ারকে সব সময় কাজ প্রদানে আগ্রহী করে তুলতে যা করবেন একটি প্রোফাইল বিল্ড করতে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার সম্পর্কিত যত বিস্তারিত তথ্য আছে, তা আপনার প্রোফাইলে খুব সুন্দর ভাবে তুলে ধরুন।যেমন ধরেন একটি সম্পূর্ণ প্রোফাইলে প্রোফাইল পিকচার, বায়ো ডেসক্রিপশন, কাজের ক্যাটাগরি, আগের প্রজেক্টসমূহ, এভারেজ সেলিং প্রাইস, ইত্যাদি বিষয়ের উপর উল্লাখ যোগ্য তথ্য থাকা একান্ত জরুরি।

অফার পোস্ট করা নিয়ম জেনেনি

এই ফিচারটিকে ফাইভারের গিগ পোস্ট করার সাথে তুলনা করা হয়েছে পিপলপারআওয়ার মার্কেটপ্লেসকে । পিপলপারআওয়ারে অফার পোস্ট করতেঃ

  • ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে প্রথমে আপনার একাউন্টে লগিন করুন, এবং পোস্ট অফার বাটনে ক্লিক করুন
  • প্রথমত একটি নজরকাড়া টাইটেল লিখুন আপনি কি সেবা অফার করছেন সেই বিষয়ে
  • প্রজেক্টের জন্য আপনার কি পরিমাণ সময় লাগবে তা খুব সুন্দর ভাবে উল্লেখ করুন
  • প্রজেক্টের ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে তার পর সাব-ক্যাটাগরি সিলেক্ট করুন
  • ছবি, ভিডিও, অডিও বা অন্যান্য ফাইল ব্যবহার করে খুব সুন্দর ভাবে আপনার কাজের দক্ষতা ও ধরন তুলে ধরুন
  • আপনার অফারের ডেসক্রিপশন বক্সে আপনার কাজ সম্পর্কিত সম্পূর্ণ বিবরণ সুন্দর ভাবে তুলে ধরুন
  • এছাড়াও সাধারণ সেবার পাশাপাশি কোনো বাড়তি সেবা থাকলে (যেমনঃ ফাস্ট ডেলিভারি) দিয়ে থাকলে একই অফারে
  • উক্ত সেবার রেট ও ধরন তুলে ধরতে পারেন যাতে কাজ করতে সুবিধা হয়
  • অফারের সেটাপ কমপ্লিট করুন সকল গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করা শেষ হলে।

প্রোপোজাল কি?

সেলারগণ সরাসরি বায়ারদেরকে প্রোপোজাল পাঠাতে পারেন কোণ ঝামেলা ছাড়া পিপলপারআওয়ারে বায়ার কোনো কাজ পোস্ট করলে। আপনার দক্ষতা সম্পর্কিত কাজসমূহের পোস্টের দিকে নিয়মিত নজর রাখতে হবে সরাসরি প্রোপোজাল পাঠাতে হলের।যে কাজটি আপনার জন্য সহজ হবে, সেই কাজটি নির্বাচন করতে পারেন।প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১৫টি প্রোপোজাল পাঠাতে পারবেন।

প্রোপোজাল পাঠানোর নিয়ম

এই তালিকাটি সময় ও তারিখের ভিত্তিকে তৈরি, অর্থাৎ সম্প্রতি পোস্ট করা কাজগুলো টপে দেখা যাবে।“Search Projects” ট্যাবে প্রবেশ করলে আপনি বায়ারদের পোস্ট করা অসংখ্য প্রজেক্ট দেখতে পাবেন। আপনার সুবিধামত কাজ খুঁজে নিতে পারবেন এসব প্রজেক্ট ফিল্টার করে।কিছু বিষয় জেনে রাখা একান্ত জরুরি বায়ারকে অফার পাঠানোর আগে , সেসব বিষয়সমূহ হলোঃ

এতে কাজের বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়ে যদি আপনি প্রথমে প্রোপোজাল পাঠানোর সময় বায়ারকে আপনার কাজ সম্পর্কিত বিস্তারিত ধারণা প্রদান করু্ন।আপনার করা কিছু কাজের স্যাম্পল সেন্ড করুন বায়ারকে সম্ভব হলে।প্রজেক্ট সম্পর্কিত একটি শর্ট ডেসক্রিপশনে রিলেটেড সুন্দর ধারণা প্রদান করুন।যেকোনো একটি মেথড সম্পর্কে আগে থেকে বায়ারকে জানিয়ে দিন তবে বায়ারের বাজেটের চেয়ে অধিক এমাউন্ট লিখলে সেক্ষেত্রে প্রোপোজাল পাঠাতে পারবেন না
কোনো বিষয় সম্পর্কে কোণ কনফিউশান থাকলে তা আগে বায়ারের সাথে কথা বলে মিটমাট করে নিন।

একনজরে দেখে নিন পিপলপারআওয়ার এর সুবিধা ও অসুবিধা গুলঃ

সুবিধা সমূহ

সম্ভাব্য ক্লায়েন্টের সংখ্যা অনেক এবং অসংখ্য ব্যবসার বিস্তৃত নেটওয়ার্ক, জড়িত এখানে অধিক নিরাপদ এবং বিপদ মুক্ত অটোনোমাস ফ্রিল্যান্সিং থেকে পেমেন্ট নিয়ে কোণ সমস্যা হয়না ইনভয়েসিং অটোমেটেড হওয়ায়

অসুবিধা

প্রতিযোগিতা সব সময় অনেক বেশি থাকে অগণিত ফ্রিল্যান্সারসমৃদ্ধ একটি প্ল্যাটফর্ম হওয়ায়।কাজের রেটের ক্ষেত্রে সব সময় প্রতিযোগীতাপূর্ণ না হলে কাজ পাওয়া খুব মুশকিল, কেননা এই একই কাজ অনেকেই খুব কম দামে করতে প্রস্তুত থাকে।

পিপলপারআওয়ারে পেমেন্ট কিভাবে দেওয়া হয়?

পেমেন্টির সম্পূর্ণ প্রসেস শেষ করতে ১দিন সময় নেয় ওয়েবসাইটটি।ওয়েবসাইটটি প্রতেক সেলারদের পেমেন্ট দিয়ে থাকে পেপাল ও ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে । অর্জিত অর্থ তোলা যাবে Payment area তে প্রবেশ করে Withdraw Funds সিলেক্ট করে।ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজের খোঁজ করে থাকলে পিপলপারআওয়ার আশার নাম হতে পারে। উল্লেখিত তথ্য অনুসরণ করে পিপলপারআওয়ারে আপনার দক্ষতাভিত্তিক কাজের সন্ধান করতে পারেন।

Leave a Comment